কি ভিন্নতা অ্যানড্রয়েড ও আইফোন অপারেটিং সিস্টেমে

android and iphone saimoom shinemarkজনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল এর অন্যতম মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম অ্যানড্রয়েড এবং সম্প্রতি বাজারে আসা অ্যাপল এর আইফোন অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে কোনটি সেরা হবে সম্প্রতি তা এখন আলোচনার শীর্ষে। পরবর্তী প্রজন্মের আইফোন, আইপড টাচ এবং আইপ্যাডের জন্য বিশেষভাবে তৈরী আইফোন অপারেটিং সিস্টেমের সুবিধা বিভিন্ন ধরনের। অন্যদিকে অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সর্বশেষ সংস্করণ ২.২ এ যুক্ত হয়েছে নতুন নতুন সব সুবিধা। বতর্মানে বিভিন্ন সুবিধা এবং নানা বৈশিষ্ট্যের দিক দিয়ে কোনটি সেরা সেই কথায় এখন আলোচনার শীর্ষে।
গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইয়ানকি গ্রুপের পরিচালক কার্ল হাওয়ে বলেন, অ্যানড্রয়েড ২.২ এবং আইফোন অপারেটিং সিস্টেম ৪.০ একই কাজ করলেও বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে এই দুই অপারেটিং সিস্টেমে ভিন্নতা আছে। দুইটি অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যেই আছে মুক্ত সফটওয়্যারের নানা সুবিধা, মাল্টিটাস্কিং ও ফোল্ডার সুবিধা। তবে সিস্টেম দুইটির মাঝে ভিন্নতাও কিন্তু কম নয়। অ্যানড্রয়েড সিস্টেম এইচ টি এম এল ৫ সুবিধা সমর্থন করলেও আইফোন অপারেটিং সিস্টেম তা সমর্থন করে না। তবে আইফোন অপারেটিং সিস্টেমে আছে ফেসটাইম বৈশিষ্ট্যের মাধ্যমে ভিডিও চ্যাটের সুবিধা। এ সুবিধা আবার অ্যানড্রয়েড এ নেই। স্মার্টফোনের বাজারে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছে ব্ল্যাকবেরি, যার বাজার অংশীদারিত্ব শতকরা ৩৫। এরপরই রয়েছে আইফোন ২৮ শতাংশ এবং অ্যানড্রয়েড সমর্থিত স্মার্টফোন ৯ শতাংশ। চলতি বছর বিশ্বব্যাপি আইফোন প্রায় ৪ কোটি এবং আগামী বছর ৫ কোটি বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। অন্যদিকে অ্যানড্রয়েড চালিত স্মার্টফোন চলতি বছর ১ কোটি ৩৮ লাখ এবং আগামী বছর ২ কোটি ৫০ লাখ বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।
যদি আপনার এই পোস্টটি ভাল লাগে এবং ভবিষ্যৎতে নতুন পোস্টগুলোর নোটিফিকেশন আপনার ইমেইলে পেতে চান তাহলে আমাদের ফ্রী ইমেইল এ্যলার্টে রেজিস্টেশন করুন।

0 টি মন্তব্য :

Comment icon এই পোস্টটা সম্পর্কে মন্তব্য করুন...

এই পোস্টটির সম্পর্কে আপনার মতামত, প্রশ্ন অথবা কিছু জানতে বা জানাতে চাইলে অনুগ্রহ করে নিচে আপনার মন্তব্যটি লিখুন।
ধন্যবাদ।

 
 
 

সাম্প্রতিক পোস্টগুলো

ছোট্ট একটি বিরতি...

সাম্প্রতিক মন্তব্যগুলো