কিছু সাইবার অপরাধের উদাহরণ

৭ই ফেব্রুয়ারি ২০০০ সাল। বেলা ১০.৩০ মিনিট থেকে টানা সাড়ে তিন ঘন্টার একটি সাইবার আক্রমন চালানো হয় সার্চ ইঞ্জিন Yahoo এর উপর। পিং করার হার ছিল এক গিগাবাইট প্রতি সেকেন্ডে। মাফিয়া বয় নাম ব্যবহার করে এই হামলা করা হয়। এই হামলার ফলে Yahoo শুধু আর্থিকভাবে নয়, সুনামের দিক থেকে ও পিছিয়ে পড়ে।

৩রা আগষ্ট ২০০০ সাল। কানাডিয়ান আদালত মাফিয়া বয়কে ৫৪ বার কম্পিউটারে অবৈধ অনুপ্রবেশ এবং ১০ বার অ্যামাজন, ই-বে, ডেল কম্পিউটার, আউট-ল ডট নেট এবং ইয়াহুর মত নামিদামী ওয়েবসাইটের তথ্য পরিবর্তন করার জন্য অভিযুক্ত করে। যদিও মাফিয়া বয় অনেক ওয়েবসাইটে আক্রমণ করেছিল, আদালত ৬৬ পর্যন্ত গোনাটাই যথেষ্ঠ মনে করেছিল। মাফিয়া বয় নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করে।

স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়, ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মত প্রতিষ্ঠানের মত অন্তত ৫০ টি ভূতুড়ে কম্পিউটার ডিডিওএস আক্রমনের সময় পিং করার জন্য ব্যবহার করা হয়েছিল।

২০০৬ সালে একটি আইনসম্মত ওয়েবসাইট হিসাবে রেজিস্টার্ড হয় রাশিয়ান বিজনেস নেটওয়ার্ক। সংক্ষেপে আর.বি.এন.। কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি তারা বুঝতে পারে অবৈধ পথেই আয়ের সুযোগ বেশি। ধীরে ধীরে এটি অপরাধীদের স্বর্গে পরিনত হয়। সাইবার অপরাধীদের বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা প্রদান করে এই সাইটটি। এভাবে বছরে তাদের আয় প্রায় ১৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আইডেন্টিটি চুরি করার নিত্যনতুন পদ্ধতি প্রয়োগ করে তারা। সাইটিকে এমপ্যাক এর উৎসব এবং স্টর্ম বট নেট এর অপারেটর বলে ধারনা করা হয়। এখন একে বলা হচ্ছে "খারাপের মধ্যে সবচেয়ে বেশি খারাপ।"

যদি আপনার এই পোস্টটি ভাল লাগে এবং ভবিষ্যৎতে নতুন পোস্টগুলোর নোটিফিকেশন আপনার ইমেইলে পেতে চান তাহলে আমাদের ফ্রী ইমেইল এ্যলার্টে রেজিস্টেশন করুন।

0 টি মন্তব্য :

Comment icon এই পোস্টটা সম্পর্কে মন্তব্য করুন...

এই পোস্টটির সম্পর্কে আপনার মতামত, প্রশ্ন অথবা কিছু জানতে বা জানাতে চাইলে অনুগ্রহ করে নিচে আপনার মন্তব্যটি লিখুন।
ধন্যবাদ।

 
 
 

সাম্প্রতিক পোস্টগুলো

ছোট্ট একটি বিরতি...

সাম্প্রতিক মন্তব্যগুলো