Advertise with ShineMat.com at low cost.
সর্বশেষ আপডেট গুলো:

কিভাবে মানুষের বাজে মনমানসিকতা উপেক্ষা করে নিজের সাফল্য অর্জন করবেন?

ভালো কিছু করতে যাবেন আপনার আশেপাশের কিছু মানুষ আপনাকে নানান কিছু বলবে আর বাধা দিবেই। জীবনে যারা যারা সাফল্য লাভ করেছে তারা সবাই প্রতিকূল পরিবেশে কিছু করেই বড় হয়েছে। আপনি কখনো আরাম আয়েশে থেকে জীবনে কিছু করতে পারবেন না। জীবনে সাফল্য লাভ করতে হলে আপনাকে কষ্ট করতে হবেই, আর আপনার চারপাশের মানুষজন আপনাকে নানা কথা বলবে, তাই তাদের কথা শুধু এক কান দিয়ে শুনুন আর আরেক কান দিয়ে বের করে দিন। ঠিক এইরকম ভাবে, "পিছনে লোকে কত কিছুই বলবে।"


how to get success in my desired work

চলুন তাহলে জেনে নিই কি সেই ট্রিকস গুলো...

০১. নিজের উপর নিজেই কন্ট্রোল আনুন, যেভাবেই হোক

যখন বড় কোন কিছু করতে যাবেন তখন আপনার সামনে অনেক বাধা আসবে, এই বাধা গুলোর মধ্যে নিজেকে টিকিয়ে রাখা অনেক কঠিন একটা কাজ। ধরুন, আপনি একটি ছোট ব্যবসা খুলতে চাইছেন, কিন্তু তখন আপনারই আশেপাশের মানুষজন আপনাকে নানা কথা বলবে, এই ব্যবসা করে জীবনে আর কিছু না হোক টাকা অনেক খরচ হবে, এই ধরনের ব্যবসায়ে লস আর লস, আর বাবা মা তো বলবেই যে তোমার দ্বারা কিছু হবে না, তুমি এইসবই করবে আরো ইত্যাদি ইত্যাদি। তখন নিজের উপর কন্ট্রোল রাখাটা খুব জরুরি। অনেকে তখন ওই মূহুর্তেই হাল ছেড়ে দেয়, একটা কাজ শুরু করার আগেই তার কাছে সেইটা ভেঙ্গে যায়। আর তখন আমি সেই মূহুর্তটার জন্য বলবো যে, শুধু ইগ্নোর করেন ওই সব কথাবার্তা। আপনি তো আপনার ভালো বুঝেন আর নিজের উপর বিশ্বাস করেন, তাই আপনার কাছে যেইটা ভালো মনে হয় সেইটাই করেন, আপনি আপনার মনের কথা শুনুন আর সাহস নিয়ে এগিয়ে যান।

০২. নিজের ভিতরের ইগুকে জাগ্রত করুন, প্রতিজ্ঞা করুন

পাছে লোকের কিছু কথাকে ইগ্নোর করতে নিজের ভিতরের ইগুকে জাগ্রত করুন। সমাজের মানুষের মুখে ঝামা ঘষতে আপনার আত্নসম্মান আর আত্নসাফল্যটাই জরুরি। মনে রাখবেন পাশের বাড়ির আন্টি কখনোই চাইবে না যে আপনি ওনার ছেলের থেকে বেশি নাম্বার পান, আপনি ওনার ছেলের থেকে সব দিক দিয়ে এগিয়ে যান, তাই ইগু আর আত্নসম্মান নিয়ে কাজ করুন, বেশি বেশি পরিশ্রম করুন আর দেখিয়ে দিন সাফল্যটা আপনি একাই এনেছেন।


০৩. চারপাশের মানুষের খারাপ কথার মাঝে ভালো করার সুযোগটা খুঁজুন

বেশি বেশি পড়াশোনা করেছেন, পাশের বাড়ির আন্টি আপনার মাকে বললো, "ভাবি আপনার ছেলে তো সারাদিন পড়াশুনা করে, আমার ছেলে তো পড়েই না" আর ঠিক তখনই আপনি আপনার পড়াশুনার মাত্রাটা আরেকটু বাড়িয়ে দিন, বা আপনি একটা নতুন কাজ করতে যাবেন, পাশের বাড়ির আত্নীয় এসে আপনাকে দু-চারটা নেগেটিভ কথা বলবেই, তাদের এই কথা গুলো পজিটিভলি নিতে চেষ্টা করুন। ভাবুন যে তারা আপনাকে আপনার কাজে উৎসাহ দিচ্ছে, আর তা না হলে তারা এত কথা বলাবলি করছে কেন আপনার বাজে কাজে? এটার মানে এই যে, আপনি ঠিকই আছেন আপনার জায়গায়।

০৪. সকল প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠুন, বিশ্বাস করুন আপনি পারবেন

প্রতিকূল পরিবেশেই সাফল্য লাভ করাটা সুমধুর। আমি যেখানে থেকে পড়াশুনা করতাম সেখানে অনেক শোরগোল হতো, সেখানে আমার পড়তে অনেক অসুবিধাই হতো, আর তখনই আমার বাবা আমাকে এই কথাই বলতো যে, প্রতিকূলতা কাটিয়েই তোমাকে লেখাপড়া করতে হবে। পৃথিবীর বড় বড় মানুষেরা প্রতিকূলতা কাটিয়েই সাফল্য লাভ করেছেন। কষ্ট হোক, আপনি নিয়মিত আপনার কাজ করেই যান। তখন সাফল্য আসলে দ্বিগুন আনন্দ পাবেন।


ভালো কিছু করতে গেলেই দেখবেন শত বাধা, মনে হবে কেউ যেন আপনাকে পেছন থেকে টানছে, আপনাকে উপরে যেতে কেউ দিবে না। ভালো কাজের পিছনে শুধুমাত্র আপনি আপনার ফ্যামিলির সাপোর্ট পাবেন, কথনো কখনো তাও পাবেন না, আর আশেপাশের মানুষ তো কখনোই আপনাকে ভুলেও সাপোর্ট করবে না। আপনি যখন জয় লাভ করবেন তখন আপনার দু-চারটি প্রশংসা শুনবেন তাদের মুখে, আর যদি আপনি ব্যর্থ হতে পারেন, তাহলে যে তারা কি করবে সেইটা না হয়, আর না-ই বলি। এই ধরনের মন মানসিকতার মানুষজন দের মুখ কখনোই বন্ধ হওয়ার নয়, তারা যেমন প্রতিনিয়ত নেগেটিভ কথা বলে আমাদেরও তেমন প্রতিনিয়ত আমাদের মনের পছন্দ করা কাজটির প্রতি লেগে থাকা উচিত শুধুমাত্র সাফল্যের জন্য, শুধুমাত্র তাদের মুখ বন্ধ করার জন্য।

মনে রাখবেন "Don't wait for a perfect moment, Take a moment and try to make it perfect."

আর, প্রতিশোধের সবচেয়ে বড় মাধ্যম হল নিজেকে সফলকাম করা। তাই ঝুম মেরে লেগে থাকুন আপনার কর্মের সফলতার জন্য। আপনার জন্য আমার মন থেকে অনেক শুভকামনা রইল।

এই পোস্টটি লিখেছেন:

Habiba Khanam ToshiToshi
হাবিবা খানম তুষি

হাবিবা খানম তুষি এই ব্লগের একজন নিয়মিত লেখিকা।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরে বেড়ে উঠা “হাবিবা খানম তুষি” বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মিউজিক ডিপার্টমেন্ট এ পড়াশোনা করছেন। পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন বিষয়ে শিখতে ও লিথতে পছন্দ করেন।
তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন তার ফেসবুক আইডিতে
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 টি মন্তব্য:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই পোস্টটির সম্পর্কে আপনার মতামত, প্রশ্ন অথবা কিছু জানতে বা জানাতে চাইলে অনুগ্রহ করে নিচে আপনার মন্তব্যটি লিখুন।
ধন্যবাদ।