Advertise with ShineMat.com at low cost.
সর্বশেষ আপডেট গুলো:

জেনে নাও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বি এবং ডি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার পূর্ব প্রস্তুতি সম্পর্কে

এইচ এস সি পরীক্ষার পর পরই শুরু হয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য তুমুল পড়াশুনা। আর তখনকার পড়াশুনার মাত্রাটাও বেড়ে যায়, কারণ প্রতিযোগীতাটা তখন কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। আর এই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে প্রয়োজন অনেক পড়াশুনার। বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা মানে সবার আগে টার্গেট থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। আর ভর্তি পরীক্ষা শুরুই হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে।


Dhaka university B and D unit Exam Preparation

অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর তুলনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতিযোগিতাটা অনেক বেশি হয়, আর সেখানে চান্স পেতে হলে প্রচুর পরিমাণে পড়াশুনা করতে হবে। আমি যেহেতু মানবিক বিভাগের ছাত্রী, সেহেতু আজ আমি তোমাদেরকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বি এবং ডি ইউনিটের পরীক্ষার প্রস্তুতি সম্পর্কে কিছু তথ্য দিবো। কিভাবে পড়াশুনা করবে সেইটা আমি বলবো না, কারণ একেক জনের পড়াশুনার ধরন একেক রকম। আমি শুধু পরীক্ষা প্রস্তুতির ধারাটা বলে দিবো, কি কি পড়বে, কোন কোন বিষয় গুলো বেশি বেশি জানার চেষ্টা করবে।


চলো তাহলে আগে জেনে নিই বি এবং ডি ইউনিটে কি কি বিষয় থেকে প্রশ্ন আসবে।

ঢাবির বি এবং ডি ইউনিটের প্রশ্নের ধারা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বি এবং ডি ইউনিটের প্রশ্নের ধারা ঠিক একই রকম শুধু মাত্র সাধারণ জ্ঞানের বেলায় একটু পার্থক্য আছে,। বি ইউনিটের সাধারণ জ্ঞানে কোন ভাগ থাকে না, সরাসরি ৫০ টি প্রশ্ন থাকে আর ডি ইউনিটে ২ টি ভাগ থাকে, প্রতিটা ভাগে ২৫ টি করে প্রশ্ন থাকে। একটি ভাগে থাকে বাংলাদেশের বিষয়াবলি নিয়ে প্রশ্ন আর আরেকটি ভাগে থাকে আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি নিয়ে প্রশ্ন। বাদবাকি বাংলা এবং ইংরেজি সব একই রকম। বাংলায় থাকবে ২৫ টি প্রশ্ন আর ইংরেজিতে থাকবে ২৫ টি প্রশ্ন। প্রতিটি প্রশ্নের মান ১.২ আর প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য নেগেটিভ মার্ক হলো ০.৩০ ( দশমিক ৩০)।


বাংলা, ইংরেজি এবং সাধারণ জ্ঞানে কি কি বিষয়াবলি পড়বে ?

বাংলা

এইচ এস সির বাংলা ১ম পত্র সকল বিষয় পড়তে হবে। গদ্যের ভাববস্তু ভালোমত পড়তে হবে, প্রতিটা লাইন ভালোমতো পড়তে হবে, কারণ গদ্যের ভিতর থেকেই প্রশ্ন করে থাকে বেশি। যেমন : বিড়াল গদ্যে কতবার বিড়াল শব্দটি উল্ল্যেখ আছে, সাতভায়া গ্রামটি কোন গল্পে উল্ল্যেখ আছে, তাহারেই পড়ে মনে কবিতায় কয়টা ফুলের নাম রয়েছে ইত্যাদি। আর বাংলা ব্যাকরণ খুব ভালো মতো পড়তে হবে, তার জন্য এস এস সির বাংলা ২য় পত্র ব্যাকরণ বইটি সবচেয়ে বেস্ট। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে সমাস, উপসর্গ, কারক বিভক্তি, ণ-ত্ব বিধান ষ-ত্ব বিধান, পদ প্রকরণ, প্রকৃতি ও প্রত্যয় থেকে প্রশ্ন করা হয়ে থাকে, তাই এই গুলো খুব ভালো মত পড়তে হবে। আর অন্যান্য যেগুলো থেকে প্রশ্ন আসে সেগুলো হলো বিপরীত শব্দ, প্রতিশব্দ, পারিভাষিক শব্দ, এক কথায় প্রকাশ, বাগধারা, লেখকের ছদ্মনাম, উপাধি ইত্যদি। আর এইচ এস সির বাংলা ১ম পত্রের লেখকের জীবনী গুলো ভালো মত পড়তে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় থাকবে একটি অনুচ্ছেদ আর এই অনুচ্ছেদটি অবশ্যই তোমাদের বাংলা ১ম পত্র বইটি থেকে থাকবে, সেইখান থেকে নানা ব্যাকরণিক প্রশ্ন থাকবে।

ইংরেজি

ভর্তি পরীক্ষায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হল ইংরেজি। বাংলা এবং সাধারণ জ্ঞান কম বেশি সবাই ই পারে এবং পাশ করে কিন্তু প্রতিযোগিরা ধরা খায় ইংরেজিতে। তাই ইংরেজি সবচেয়ে বেশি পড়া লাগবে।

ইংরেজির গ্রামার অংশে থাকবে...
Noun.
Pronoun.
Adjective.
Adverb.
Tense.
The right form of a verb.
Subject-verb agreement.
Sentence structure.
Modals.
Conditional Sentence.
Subjunctive.
Comparison of adjective and adverb.
Causative verb.
Tag question.
Redundancy.
Inversion.
Dangling modifier.
Parallelism.
The affirmative and negative agreement.
Conjunction.
Phrase and idioms.
Synonyms and Antonyms.
Proposition.
Group verb.
Spelling.
Analogy.
Translation.
Comprehension.

ইংরেজির জন্য এই টপিকগুলা ভালোমতো পড়তে হবে। আর প্রতিদিন কম করে হলেও ১০ টি Synonyms and Antonyms মুখস্ত করতে হবে।

সাধারণ জ্ঞান

সাধারণ জ্ঞানে সবচেয়ে বেশি নম্বর। সাধারণ জ্ঞান পড়তে হবে প্রচুর। বাংলাদেশ আর আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি পড়তে হবে, বিশেষ করে আপডেট তথ্য, সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া তথ্য, ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধ, জাতীয় বিষয়াবলি, ভৌগলিক, মহাদেশ, বিভিন্ন দেশের সরকার, সংবিধান, জাতিসংঘ, সভ্যতা ইত্যাদি বিষয়াবলি পড়তে হবে। আরো পড়তে হবে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স, দৈনিক পত্রিকাগুলো।

দৈনিক ৭ থেকে ১০ ঘণ্টা পড়তে হবে, আর প্রতিদিনই পড়তে হবে। পড়ার জন্য একটি রুটিন তৈরি কর, আর রুটিন অনুযায়ী দৈনিক পড়াশুনা কর।
আর সবচেয়ে বড় কথা হলো সুস্থ থাকবে, পড়াশুনার কথা চিন্তা করে অসুস্থ হয়ে পড়লে তোমারই লস। আর কোন প্রকার টেনসন মাথায় নিবে না, কারণ টেনসন করলে তোমারই মাথা জ্যাম হতে পারে, তখন ব্রেন ঠিকঠাক মত কাজ নাও করতে পারে। রাতে বেশি ঘুমানোর চেষ্টা করবে যেনো ব্রেন ঠান্ডা থাকে। তুমি তোমার স্টাইলে পড়াশুনা করবে, অন্যের স্টাইল অনুসরণ করতে যাবে না, এতে তোমারই ক্ষতি হতে পারে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সম্পর্কিত আরো তথ্য জানতে আমাদের সাথে থাকো, আমি তোমাদের সাথে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি তথ্য নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। ভাল থাকো, দোয়া করি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে আমার সাথে কোন এক ক্যাম্পাসে দেখা হবে।

এই পোস্টটি লিখেছেন:

হাবিবা খানম তুষিহাবিবা খানম তুষি
হাবিবা খানম তুষি

হাবিবা খানম তুষি এই ব্লগের একজন নিয়মিত লেখিকা।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরে বেড়ে উঠা “হাবিবা খানম তুষি” বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মিউজিক ডিপার্টমেন্ট এ পড়াশোনা করছেন। পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন বিষয়ে শিখতে ও লিথতে পছন্দ করেন।
তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন তার ফেসবুক আইডিতে
  • Blogger Comments
  • Facebook Comments

0 টি মন্তব্য:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

এই পোস্টটির সম্পর্কে আপনার মতামত, প্রশ্ন অথবা কিছু জানতে বা জানাতে চাইলে অনুগ্রহ করে নিচে আপনার মন্তব্যটি লিখুন।
ধন্যবাদ।